অগ্নিদগ্ধে নিভে গেল স্কুল ছাত্রীর জীবন

আব্দুল্লাহ,যশোর জেলা প্রতিনিধি :
শার্শায় তেতুল পুড়িয়ে খেতে গিয়ে আহত অগ্নিদগ্ধ অরিশা খাতুন (১০) নামে এক স্কুল ছাত্রী মৃত্যুর কাছে হার মেনে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে ঢাকা শেখ হাসিনা বার্ণ ইউনিট হাসপাতালে চিকিৎসাধী অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত অরিশা শার্শা উপজেলার ডিহি ইউনিয়নের টেংরালী গ্রামের নূর হোসেনের মেয়ে ও টেংরালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী।

সরেজমিনে ও নিহতের পরিবার জানায়,গত (২২ অক্টোবর) সকালে পাটখড়ীর আগুনে তেতুল পুড়িয়ে খাওয়ার জন্য আগুন জালায়।ওই সময় অসাবধানতাবশত গায়ের জামায় আগুন ধরে যায়। পরে অরিশার আত্নচিৎকারে পরিবারসহ আশেপাশের লোকজন গুরুতর অবস্থায় দ্রুত উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

সেখানে দুইদিন চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা শেখ হাসিনা বার্ণ ইউনিট হাসপাতালে রেফার করে।দীর্ঘ একমাস তিনদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার রাতে সবাইকে কাদিয়ে চলে যান না ফেরার দেশে।

বৃহস্পতিবার সকালে নিহতের মরদেহ গ্রামের বাড়ি শার্শার টেংরালী পৌঁছালে এক হ্নদয় বিদারকের সৃষ্টি হয়।এদিকে নিহত অরিশার অকাল মৃত্যুতে পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় জানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক করবস্থানে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।