কচুয়া পাবলিক লাইব্রেরীতে কবিদের প্রকাশিত বই হস্তান্তর

মোঃ তরিকুল ইসলাম, কচুয়া (বাগেরহাট) প্রতিনিধি:

বাগেরহাট জেলার কচুয়ার সন্তান কবি ইসমাইল শেখ(এম আই সেখ) ও কবি ইয়াছির আরাফাত এর লেখা বেশকিছু প্রকাশিত বই উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে কচুয়া পাবলিক লাইব্রেরীতে প্রদান করা হয়েছে।

২৭ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ১১ টায় কচুয়া পাবলিক লাইব্রেরী হল রুমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জীনাত মহলের হাতে স্ব-স্ব লেখক তাদের প্রকাশিত বই গুলো তুলেদেন।এদিন উপস্থিত সকলকে নিয়ে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করেন।

অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক সমীর বরন পাইকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আলোচনায় অংশ নেয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার জীনাত মহল।অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কচুয়া উপজেলা শাখা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম(খোকন),জাতীয় পার্টির কচুয়া উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃনুরুল হুদা নূর (হাদি),বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান,প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক কাজি সাইদ,সাংবাদিকদের জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কচুয়া শাখার আহবায়ক মীর আওসাফুর রহমান মারুফ,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কচুয়া শাখার যুগ্মআহবায়ক দিহিদার জাহিদুল ইসলাম (বুলু),সাংবাদিক উজ্জ্বল কুমার দাস।

এসময় কবি ইসমাইল শেখ বলেন,এখন পর্যন্ত তার লেখা ৫ টি বই প্রকাশিত হয়েছে।তার প্রকাশিত বই গুলো হলো নানা রঙের দিনগুলো(স্মৃতিকথা ও অন্যান্য),মেঘ ছুঁয়েছে নদীটা(কাব্যগন্থ রোমান্টিক), ছায়া (সমকালীন গল্প গুচ্ছ) এবং দুরন্ত শৈশব(শৈশব স্মৃতি মূলক অখ্যান) এছাড়াও মহামারি করোনা নামে (যৌথ) আরো একটি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয় এবং নয়দুয়ারি প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে।তিনি বর্তমানে চট্টগ্রামের শিতাকুন্ডু উপজেলার শীতলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ে শিক্ষকতা করেন।

এছাড়া ইয়াছির আরাফাতের লেখা জ্যোৎসনা ও মায়াবতী(কাব্যগ্রন্থ) ও ক্ষনিকা(কাব্যগ্রন্থ) নামে দুটি বইয়ের কিছু কপি এদিন লাইব্রেরীতে প্রদান করেন। তার শব্দ তরী নামে আরো একটি কবিতার বই প্রকাশের অপেক্ষায় আছে।তিনিও কবিতা লেখার পাশাপাশি শিক্ষকতা পেশায় জড়িত রয়েছেন।