দানবের প্রতিচ্ছবি আয়নায়

সাব রিপোর্ট-তোফাজ্জল হোসেন,

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

আনেকক্ষণ মিরোর গেজিং (mirror Gazing) করার ফলে নিজের ভেতর অদ্ভুত এক অনুভূতির জন্ম নিচ্ছে। না না একটু ভুল বললাম, অদ্ভুত একটা অনুভূতির জন্ম দেওয়ার চেষ্টা করছি।

সবার কাছে শোনা যায় আলোর রিফলেকশনের মাধ্যমে আয়না নাকি শুধু মানুষের চেহারাই দেখায়। আমি কিন্তু তা অবিশ্বাস করি না। তবে আমি চেহারার আরো গভীরে যেতে চাই। আয়নায় ভেসে ওঠা মানুষটার ভেতরের অবয়ব দেখতে চাই। যা আগে কখনো কেউ দেখতে চায় নি।

হ্যাঁ, আয়না দিয়ে বাহ্যিক রূপের পাশাপাশি ভেতরের রূপটাকেও দেখা সম্ভব। কিন্তু তার জন্য দরকার Deep attention, Concentration বা একাগ্রতার। প্রথম ৩ মিনিটে বিশেষ কিছু লক্ষ্য করলাম না। আয়নায় নিজের বাহ্যিক অবয়ব টাই দেখা যাচ্ছে।

তারপর, ধীরে ধীরে প্রথমে চোখের নিচ টা কালো হতে শুরু করলো। গালদুটোও তাই হলো। গোল গোল চোখ দুটো একটার সাথে আরের টা মিলে যাচ্ছে। নাকটা ঠিক খুঁজে পাচ্ছি না। আস্তে আস্তে পুরো চেহারা বিকৃত হতে লাগলো।

প্রায় ২০ মিনিট ধরে একটানা মিরোর গ্রেজিং করছি,এখন আর বাহ্যিক মানুষটাকে দেখা যায় না। রক্ত মাংসের মানুষ টা এখন রূপ নিয়েছে আস্ত একটা দানবে। আয়নার দানবকে দেখে ভয় লাগছে খুব। মনে হচ্ছে আয়না ভেঙে ও বাইরে আসতে চাচ্ছে, রক্তের স্বাদ নিতে। যদিও এটা একটা Optical illusion। কিন্তু মাঝে মাঝে মানুষের মানুষিক প্রতিবিম্বটা কিন্তু এট থেকেও অনেক বেশি ভয়ংকর হয়। আমি আয়নায় নিজের মনের ভিতরে লুকিয়ে থাকা দানবটাকে এখন স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি। এই দানব প্রতিটি মানুষের মাঝেই আছে।
যে কিনা ক্ষুধা পেলে নিজের ভাইয়ের মাংস খেতে দ্বিধা করে না। আবার পিপাসা পেলে মজলুম গরিবের রক্ত চুষেও খায়।

এটা এমন একটা দানব যাঁর কাছে সব মেয়েরাই ভোগের বস্তু। মা,বোন,ভাবি কেউই রক্ষা পাবে না এর থেকে।
এই দানব শুধু সুযোগের অপেক্ষায় থাকে। কখন সে কলেজ ইউনিভার্সিটিতে জুনিয়রদের র‍্যাগিং এর নামে নির্যাতন করে নিজের অধিপত্যের বিস্তার ঘটাবে।
আবার কালো জামা পরে নিরপরাধকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে প্রাণ নিয়ে ক্ষান্ত হবে। মুলত আমরাই পৃথিবীর সব থেকে ভয়ংকর আর হিংস্র প্রাণী। যদিও আয়নার সেটা প্রকাশ পায় না। তবে আমাদের হিংস্রতা আয়নায় দেখা সম্ভব।
বেশি কিছু করতে হবে না, আয়নার সামনে দাঁড়ান। আমার মতো কিছু ক্ষন নিশ্চুপ হয়ে নিজের দিকে তাকান। আর পাপ গুলোর কথা সরণ করুন। তাহলেই নিজের দানবীয় রূপটা দেখতে পাবেন।
তাহলে কি আমরা সবাই দানব…?
না আমরা সবাই দানব না।
নিজের দানবীয় রূপটা দেখার পরে যদি মনের ভিতর পাপবোধ জাগ্রত হয়,মৃত্যুর ভয় হয় আর চোখ সাথে সাথে পানি ছেড়ে দেয় তাহলে বুঝবেন আপনি মানুষ। কারণ মানুষ অন্যায় করে ঠিকই তবে তার জন্য অনুসূচনাও করে,আল্লাহর কাছে তওবা করে…
কেননা আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কুরআনে বলেন :

“তোমরা আল্লাহর কাছে তওবা করো, বিশুদ্ধ তওবা, সম্ভবত তোমাদের প্রতিপালক তোমাদের মন্দ কাজগুলো মোচন করে দেবেন এবং তোমাদেরকে প্রবেশ করাবেন জান্নাতে; যার পাদদেশে নদী প্রবাহিত।”(তাহরিম-৮)

লেখকঃ মোঃ কামরুল ইসলাম খান।