বিজয়ের মাসে কিছু সফল মানুষদের জীবনাদর্শ নিয়ে আমার ধারাবাহিক প্রতিবেদন। পর্ব – ০৩

নিয়ামুল ইসলাম (ধুনট) প্রতিনিধি:

মহান আল্লাহর সৃষ্টি জগৎ এর ভিতর সর্ব শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি হচ্ছে মানুষ। আল্লাহ রব্বুল আলামীন মানুষকে পরীক্ষামূলক ভাবে বিচার বিশ্লেষণ করতে হিতাহিত বিবেক বুদ্ধি দিয়ে পৃথিবী নামক ক্ষণস্থায়ী ছোট্ট একটি গ্রহে বিচরণ করতে দিয়েছেন। আমাদের কৃতকর্মের ফল আল্লাহ নিজ দায়িত্বে ফেরেশতাদের মাধ্যমে লিপিবদ্ধ করে রাখছেন। শেষ কর্ম দিবস হাশরের ময়দানে মানুষ তার প্রতিটি কাজের জন্য পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে আল্লাহ দরবারে হিসাব বুঝিয়ে দিতে হবে। তার উপর নির্ভর করবে চিরসুখময় জায়গা জান্নাত নতুবা চির ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের জায়গা জাহান্নাম। আল্লাহ আমাদের সকলকে হেফাজত করুন, আমিন। মানুষ তার নিজ নামের দ্বারা কিছুটা প্রভাবিত। কারো যদি সুন্দর একটি ইসলামিক নাম থাকে, সেই নামের নেক আছর মানুষের জীবনে কিছুটা হলেও প্রভাবিত হয়ে থাকে। আমারা আমাদের সন্তানদেন ইসলামিক ভালো অর্থ সহ নাম রাখবার চেষ্টা করবো, ইনশাআল্লাহ।

আজ এমন এক জনকে নিয়ে লিখতে যাচ্ছি যাঁর নামটাই শুধু সুন্দর নয় বরং আচার-আচরণ, চলাফেরা, কথাবার্তা, লেখাপড়া, খেলাধুলা, ধর্ম কর্মে সর্বসেরা। সে আমাদের আব্দুল্লাহ। পূর্ণ নাম মোঃ আশরাফুল আলম আব্দুল্লাহ। সম্পূর্ণ ইসলামিক নাম। এ নামের অর্থ জানতে পারলে আরো আশ্চর্য হবেন,মনে মনে ভাববেন আমাদের নামটা কেন এই নাম হলো না। আশরাফুল আলম আব্দুল্লাহ হয়তো আমাদের নাম নয় কিন্তু তিনার গুণাবলী আদর্শ আমরা আমাদের মাঝে লালন করব,ইনশাআল্লাহ।
আশরাফুল আলম আব্দুল্লাহ নামের অর্থ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ আল্লাহর বান্দা। আলহামদুলিল্লাহ।

এই গুণী ছেলেটি পূর্ব বগুড়ার ধুনট উপজেলার অন্তর্গত ঐতিহ্যবাহী গ্রাম বড়বিলার এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত আলেম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। যাঁর বাবা, মা, চাচা, দাদারা আলেম এবং ধর্মীক পরহেজগার। এমন পরিবার থেকে আব্দুল্লাহর বেড়ে ওঠা। ছোট বেলা থেকেই সে ছিল শান্ত শিষ্ট, নমনীয় লাজুক, বুদ্ধিবান। তাঁর মেধা যোগ্যতার বলে প্রাথমিক, উচ্চ থেকে উচ্চতর শিক্ষার প্রতিটি ধাপে অসামান্য কৃতিত্বের সহিত উত্তীর্ণ হয়ে আসছেন। মাধ্যমিক(দাখিল) এবং উচ্চ মাধ্যমিক (আলিম) পরীক্ষায় সর্বচ্চ জিপিএ ৫ পেয়ে রাজধানীর সুনামধন্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজের স্থান অধিকার করে নিয়েছেন।

তিনি শুধু লেখাপড়াতেই সেরা নয় বরং সে খেলাধুলাতে বরাবরই ডানপীঠে এবং দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়ে সুনাম কুড়িয়েছে বহুবার, নিয়মিত প্রতিযোগিতা মূলক যেকোনো বিষয়ক অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করা, তিনার সুমধুর কন্ঠে ইসলামিক সঙ্গীত পরিবেশন অসাধারণ, সমাজসেবামূলক কার্যক্রমের সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহণ করা সহ ধর্মীয় রীতিনীতি আচার-অনুষ্ঠানে নিজেকে সর্বদা ব্যস্ত রাখা ছেলেটি হচ্ছেন আব্দুল্লাহ। যার সব কিছুই সম্ভব হয়েছে মহান রবের খাস রহমত, পরিবারের সুশিক্ষা আর নিজের নেক নিয়তের উপর ভিত্তি করে। আল্লাহ-রাব্বুল-আলামিন তাই হয়তোবা দেশের সেরা জ্ঞানী আলেমদের সমন্বয়ে টেলিভিশনে প্রতিযোগিতা মূলক অনুষ্ঠান
“আলোকিত জ্ঞানী” মূল আসরে গোল্ডেন চেয়ারে বসিয়ে আপনাকে সম্মানিত করেছেন। টেলিভিশন পর্বে যাহা একযোগে পুরো বিশ্ববাসী আপনাকে দেখেছেন এতেকরে আমরা গ্রামবাসী খুবই গর্বীত। আপনি আমাদের গ্রামের ইতিহাস সৃষ্টি কারি হিসাবে এক বিশাল মাইল ফলক।

আপনার এই ছোট্ট জীবনে আপনার ক্লান্ত পরিশ্রম ও কাজের মাধ্যমে বিশাল বিশাল সম্মান অর্জন করেছেন এবং অনেক অনেক সম্মাননা কুড়িয়েছেন। অদূর ভবিষ্যতে আমরা আপনাকে আরো বড়কোন অবস্থানে দেখতে চাই যেখান থেকে স্বাধীন বাংলাদেশের অতি সাধারণ অসহায় মানুষ খুব সহজেই সেবা পেতে পারেন। ছোট বেলায় ইসলাম শিক্ষায় একটি হাদিস পড়েছিলাম “ইন্নামাল আমালু বিন্নিয়াত” অর্থ সকল কাজ নিয়তের উপর প্রতিষ্ঠিত। আমরা মনে প্রাণে বিশ্বাস করি এবং আল্লাহ উপর ভরসা রাখি আপনার দ্বারা অবশ্যই মহান রব ঘুনে ধরা সমাজের জন্য কিছু প্রতিষ্ঠিত করবেন। এমন গুণী মানুষের জীবনাদর্শ থেকে আমাদের মতো সাধারণ মানুষদের অনেক কিছু শিক্ষা নেবার আছে।
মহান রবের দরবারে আপনার দীর্ঘায়ু এবং সুস্বাস্থ্য লক্ষ্য কোটিবার পার্থনা জানায়।
আল্লাহ আপনাকে সহ আপনার মতো সকল যুব-ছাত্রদের ন্যায়ের পথে কবুল করুন, আমিন।