বিয়ের জন্য চাপ দেওয়ায় প্রেমিকাকে হত্যার পর মাথা বিচ্ছিন্ন

ডেক্স নিউজ:
ময়মনসিংহের ত্রিশালে তরুণীর মাথাবিহীন মরদেহ উদ্ধারের রহস্য উদঘাটন করেছে র‌্যাব। এ ঘটনায় জড়িত সেলিম মল্লিক (৩০) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিয়ের জন্য চাপ দেওয়ায় তিনি ওই নারীকে খুন করেন বলে দাবি করেছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে জেলার ত্রিশাল উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের কাঁটাখালি এলাকার একটি ডোবা থেকে ওই নারীর মাথা উদ্ধার করে র‌্যাব-১৪।

এর আগে রোববার (২ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রাম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত নারী রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার জুলু মিয়ার মেয়ে সুলতানা বেগম (২৭)। তিনি চাকরির সুবাদে গাজীপুর জেলায় বসবাস করতেন।

গ্রেফতার সেলিম মিয়া ত্রিশাল উপজেলার ধানীখোলা ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকার আব্দুল মালেকের ছেলে। বুধবার (৫ জানুয়ারি) তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

আজ বিকেলে র‌্যাব-১৪ কার্যালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব জানায়, ওই নারীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল সেলিম মল্লিকের। ওই সম্পর্কের জেরেই তারা প্রায়ই সাক্ষাৎ করতেন। সম্প্রতি ওই নারী সেলিম মল্লিককে বিয়ে করার জন্য চাপ দেয়। সেলিম বিয়ের চাপ সহ্য করতে না পেরে তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী বিয়ে করার কথা বলে শনিবার (১ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে ওই নারীকে ত্রিশালে নিয়ে আসেন। দিনভর তাকে নিয়ে ঘোরাঘুরির পর রাতে ধানীখোলা ইউনিয়নের কাটাখালী এলাকায় নিয়ে গিয়ে যান। সেখানে অন্য আরেকজনের সহায়তায় ওই নারীকে হত্যা করেন।

র‌্যাব-১৪ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার মো. রোকনুজ্জামান বলেন, তরুণীকে হত্যার পর তার পরিচয় গোপন ও নিজেকে বাঁচাতে মাথা কেটে অন্য জায়গায় ফেলে দেন সেলিম মল্লিক

অলটাইমনিউজ/খালিদ