মেইড ইন বাংলাদেশ সিম্ফনি যাচ্ছে নেপালে

ডেক্স নিউজ: বাংলাদেশে তৈরি সিম্ফনি স্মার্টফোন নেপালে রপ্তানি হচ্ছে। অ্যাপেক্স গ্রুপ নামে নেপালের একটি কোম্পানি সিম্ফনির কাছ থেকে এ স্মার্টফোন নিচ্ছে।

২০২১ সালের অক্টোবরে প্রথমে তিনটি মডেলের প্রায় ১৫ হাজার স্মার্টফোন নেয় তারা। প্রতি মাসে বিভিন্ন মডেলের প্রায় ১০ হাজার করে পণ্য সিম্ফনি মোবাইলের হয়ে তারা নেপালে বাজারজাত করবে।

২২ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে এ রপ্তানি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। অনুষ্ঠানে টেলিযোগাযোগ সচিব খলিলুর রহমান, বিটিআরসি চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর শিকদার বিশেষ অতিথি ছিলেন। অতিথি ছিলেন বিটিআরসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও।

সিম্ফনি জানিয়েছে, বাংলাদেশ থেকে সিম্ফনি মোবাইলই প্রথম সরাসরি ব্র্যান্ড নেইম নিয়েই ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত স্মার্টফোন রপ্তানি করছে। এটাকে তারা দেশের রপ্তানি খাতে নতুন এক মাইলফলক হিসাবে উল্লেখ করছে।

মোস্তাফা জব্বার তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশে তারাই একটি মাত্র ব্র্যান্ড, যারা কোনো ধরনের বৈদেশিক বা সরকারি সাহায্য ছাড়াই শুধু নিজস্ব উদ্যোগে এত বড় একটি কারখানা পরিচালনা করছেন; যা নিছকই দেশপ্রেম থেকেই এসেছে। তিনি সিম্ফনি মোবাইলকে অতি দ্রুত আরও ৫০টি দেশে দেখতে চান বলে জানান এবং এর জন্য যে কোনো ধরনের সাহায্য বাংলাদেশ সরকার করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

খলিলুর রহমান বলেন, মেড ইন বাংলাদেশ মোবাইল হ্যান্ডসেট বাংলাদেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক বাজারে রপ্তানি অত্যন্ত গৌরবের বিষয়। সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়ার শিল্প বাংলাদেশের একটি শ্রমঘন শিল্পে পরিণত হওয়া দেশের অগ্রযাত্রাকে আরও বেগবান করবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

শ্যাম সুন্দর সিকদার উৎপাদিত পণ্যের গুণগত মান ধরে রাখার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, বিটিআরসি মোবাইল হ্যান্ডসেট উৎপাদনসহ এ শিল্পের বিকাশে আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে সিম্ফনি মোবাইলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জাকারিয়া শাহীদ জানান, সিম্ফনি মোবাইল বাংলাদেশের ব্র্যান্ড। বাংলাদেশ থেকে আমরা প্রতি মাসেই ১০ হাজার প্রডাক্ট নেপালের মার্কেটে রপ্তানি করব। আমাদের ফ্যাক্টরিতে প্রতি মাসে ১০ লক্ষ প্রডাক্ট আমরা উৎপাদন করতে পারি। এই ফ্যাক্টরিতে ১৫শ মানুষ কাজ করছে, কিন্তু এর পাশাপাশি প্রায় আরও কয়েক লক্ষ মানুষ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে এ উৎপাদন কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত আছে। ২০২২ সালেই নেপাল বাদে আমরা নাইজেরিয়া, সুদান, ভিয়েতনাম, শ্রীলংকায় আমাদের মোবাইল ফোন রপ্তানি করার পরিকল্পনা করছি।

২০১৮ সালে সিম্ফনি মোবাইল প্রায় ৫৫ হাজার স্কয়ারফিট জায়গায় তাদের যাত্রা শুরু করে আশুলিয়ার জিরাবোতে। এখন আশুলিয়ার আউকপাড়া ডেইরি ফার্মে নিজস্ব জমিতে সিম্ফনি মোবাইলের ফ্যাক্টরিটি প্রায় ২ লাখ স্কয়ারফিট জায়গার ওপর নির্মিত যেখানে প্রতি বছর প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ মোবাইল ফোন উৎপাদিত হচ্ছে।

স্মার্টফোনের পাশাপাশি মোবাইল ফোনের নানা যন্ত্রাংশ এবং এক্সেসরিজও তৈরি করছে সিম্ফনি। সিম্ফনির কারখানায় প্রতি মাসে ৮ লাখ চার্জার, ৮ লাখ ব্যাটারি এবং ৮ লাখ ইয়ারফোন উৎপাদিত হচ্ছে, সামনে তা আরও বাড়বে বলে জানিয়েছে সিম্ফনি কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া মেইড ইন বাংলাদেশ ট্যাবলেটের ঘোষণাও দিয়েছেন জাকারিয়া শাহীদ।