মেঘনার কাঁঠালিয়া নদীতে ট্রলারডুবি, ৩ জনের মৃত্যু

কুমিল্লার মেঘনা উপজেলার কাঁঠালিয়া নদীতে ট্রলার (ইঞ্জিন চালিত নৌকা) ডুবে ৩ জন মারা গেছেন। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছে আরো এক শিশু। সোমবার দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন তিতাস উপজেলার রায়পুর গ্রামের আব্দুল মতিন মিয়ার স্ত্রী জুলেখা আক্তার (৬০), তার নাতনি আয়েশা আক্তার (১৫) ও মরিয়ম আক্তার (৭)। নিখোঁজ রয়েছে আরেক নাতনি তামান্না আক্তার (৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন দাউদকান্দি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মাজহারুল ইসলাম জানান, নিহতদের মধ্যে দু’জন মেয়েশিশু ও একজন নারী। এ ঘটনায় এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ শিশুকে উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ট্রলারটিতে মোট ১১ জন ছিলেন, আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। তাদেরকে দাউদকান্দির একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আক্তার হোসেন বলেন, সোমবার দাউদকান্দি উপজেলার হাসনাবাদ এলাকা থেকে তিতাসের দুধঘাটা দরিয়াকান্দির উদ্দেশ্যে ১১ জন যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলার যাত্রা করে। ট্রলারটি মেঘনা উপজেলার কাঁঠালিয়া নদীর পুরোনো বাটেরা এলাকায় পৌঁছলে কচুরিপানার কারণে গতি কমে যায়। এ সময় চালক এটির গতি বাড়িয়ে চালিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। তখন কিছুর সঙ্গে লেগে ট্রলারটির তলা ফুটো হয়ে যায়।

সূত্র আরো জানায়, নিখোঁজ ও নিহতরা সবাই ঢাকার ডেমরা এলাকায় বসবাস করে। স্বজনের বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনার শিকার হন তারা।

স্থানীয়দের কেউ কেউ জানিয়েছেন, এ নদীর বিভিন্ন স্থানে অব্যবস্থাপনায় গড়ে উঠেছে মাছ ধরার ঘের। এই ঘেরে অনেক সময়ই ট্রলার আটকে গিয়ে ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে। দুর্ঘটনা কবলিত ট্রলারটিও এমনি অবস্থায় বিকল হয়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

মেঘনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছমিউদ্দিন বলেন, তিনজন মারা গেছেন। আমরা ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছি।