মোরেলগঞ্জ খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মারপিটের অভিযোগ।

ইমরান হোসেন

বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি।

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতা ও খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মারপিটের অভিযোগ করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার। সোমবার বেলা ৩ টায় মোড়েলগঞ্জ প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের টেকনিশিয়ান বনস্পতি মিত্রকে মারপিটের অভিযোগ এনে এই সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মারপিটের শিকার টেকনিশিয়ান বনস্পতি মিত্রর মাতা মিনতি রানী।
সংবাদ সম্মেলনে মিনতি রানী জানান, সোমবার (২৪ জানুয়ারি) বেলা ১১ টায় আমার ছেলে প্রাণিসম্পদ দপ্তরের কৃত্রিম প্রজনন টেকনিশিয়ান বনস্পতি মিত্রকে ইউপি চেয়ারম্যান তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে গত ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার অভিযোগ এনে মারপিট করে এবং আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। মিনতী রানী তার পরিবারের নিরাপত্তার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা এবং ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমানের বিচার দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, খাউলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: ইসাহাক আলী হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক মো: আবুল কাসেম হাওলাদার, হরিপদ মিত্র, কৃষ্ণকান্ত মিত্র, সামসুল আলম হাওলাদার, ওবায়দুল হক দুলালসহ ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যগন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান বলেন, বনস্পতি মিত্রের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসায় একটি গাভী মেরে ফেলার অভিযোগ রয়েছে। আমি তাকে গাভীটি কিনে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি। নির্বাচনী জেরে তাকে মারপিট বা গালমন্দ করা হয়নি। আওয়ামী লীগ নেতা ও খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মারপিটের অভিযোগ করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার। সোমবার বেলা ৩ টায় মোড়েলগঞ্জ প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের টেকনিশিয়ান বনস্পতি মিত্রকে মারপিটের অভিযোগ এনে এই সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মারপিটের শিকার টেকনিশিয়ান বনস্পতি মিত্রর মাতা মিনতি রানী।
সংবাদ সম্মেলনে মিনতি রানী জানান, সোমবার (২৪ জানুয়ারি) বেলা ১১ টায় আমার ছেলে প্রাণিসম্পদ দপ্তরের কৃত্রিম প্রজনন টেকনিশিয়ান বনস্পতি মিত্রকে ইউপি চেয়ারম্যান তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে গত ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার অভিযোগ এনে মারপিট করে এবং আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। মিনতী রানী তার পরিবারের নিরাপত্তার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা এবং ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমানের বিচার দাবি করেন। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, খাউলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: ইসাহাক আলী হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক মো: আবুল কাসেম হাওলাদার, হরিপদ মিত্র, কৃষ্ণকান্ত মিত্র, সামসুল আলম হাওলাদার, ওবায়দুল হক দুলালসহ ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যগন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে খাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান বলেন, বনস্পতি মিত্রের বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসায় একটি গাভী মেরে ফেলার অভিযোগ রয়েছে। আমি তাকে গাভীটি কিনে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি। নির্বাচনী জেরে তাকে মারপিট বা গালমন্দ করা হয়নি।