একদিনের জন্য বিয়ে করতে চান! মিলবে মধুচন্দ্রিমার সুযোগও

আপনি কি ভ্রমণপিপাসু, সিঙ্গল? তাহলে আপনার জন্য রয়েছে সুখবর। একদিনের জন্য বিবাহিত হয়ে উপভোগ করুন দাম্পত্যসুখ। বিয়ে নিয়ে কত মাথা ব্যথাই না থাকে লোকজনের। ও বাবা, বিয়ে? এখন না।

তারপর জীবনভর ঝামেলা চলুক নাকি! ওসব ফালতু ঝামেলায় নেই বস! আমি সিঙ্গল..। জীবনে সিঙ্গল থাকিয়াই মরিতে চাহি আমি এ সুন্দর ভূবনে…’ বিয়ে নিয়ে এহেন অনেক কথাই শোনা যায়। কিন্তু ভাবুন তো, যদি একদিনের জন্য বিয়ে করার সুযোগ থাকত?

আর সেই একদিনেই যদি মধুচন্দ্রিমার মধুর আমেজ নেওয়া যেত! কি অকল্পনীয় ভাবনার মতো ঠেকছে তো? ভাবছেন, যাঃ তাও আবার হয় নাকি! ভাববেন না। কারণ, এমন ব্যবস্থা কিন্তু সত্যিই রয়েছে। যেখানে একদিনে বিয়ে সেরে মধুচন্দ্রিমায় সঙ্গীকে বগলদাবা করে ঘুরতে পারবেন সেই শহর।সঙ্গে বাড়তি পাওনা নব দাম্পত্যজীবনের খুনসুটি।

শুনে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। মন্দ হত কি না, জানা নেই। তবে, একদিনের স্বামী কিংবা স্ত্রী হওয়ার সাধপূরণ করতে পারেন আপনিও। সঙ্গে আইসক্রিমের উপর অতিরিক্ত টপিংসের মতো উপরিপাওনার হিসেবে মিলবে মধুচন্দ্রিমার সুযোগ।

আপনি চাইলে মধুচন্দ্রিমা যাপনের দিনক্ষণ বাড়িয়েও দিতে পারেন। তবে, তার জন্য খানিক টাকা খরচ করতে হবে। ডাচ রাজধানী আমস্টারডামে মিলবে এহেন সুবর্ণ সুযোগ। পছন্দমাফিক সেখানকার স্থানীয় কোনও মেয়ে বা ছেলেকে বিয়ে করে নিন।

এরপর সেই শহরেই মিলবে জামাই আদর বা বউমা আদর। আর মধুচন্দ্রিমায় ঘুরে নিতে পারবেন গোটা আমস্টারডাম শহরটা।

সূত্রের খবর, আরও বেশি করে পর্যটক টানার উদ্দেশেই এহেন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে আমস্টারডাম প্রসাশনের তরফে। এর ফলে আগামী এক দশকে আমস্টারডামে ভ্রমণার্থীর সংখ্যা ১৯ মিলিয়ন থেকে বেড়ে দাঁড়াবে ২৯ মিলিয়ন, এমনটাই অনুমান করছেন সে দেশের ভ্রমণ সংস্থার কর্তারা।

দেবোরা নিকোলাস-লি নামের এক মহিলা সদ্য ঘুরে এসে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর নিজের অভিজ্ঞার কথা তুলে ধরেছিলেন। নকল হলেও, এই বিয়ে বিয়ে খেলা মন্দ নয়, জানিয়েছেন দেবোরা নিজেই। আর সেই নকল বিয়ের মধুচন্দ্রিমাযাপনও নাকি বেশ সুখের, এমনটাই মত তাঁর। চাইলে আপনিও এই সুযোগ নিতে একবারটি ঢুঁ মেরে আসতেই পারেন আমস্টারডামে।