দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি

দুর্নীতি ও অনিয়মের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করে আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা বলেছেন, কোন অপকর্মকারী ছাড় পাবে না।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে শনিবার বিকালে রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

সভাপতির বক্তৃতায় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য আমীর হোসেন আমু এমপি বলেন, কোনো অপকর্মকারীদের ছাড় দেয়া হবে না। তাদের জন্য এত উন্নয়ন, অর্জন ম্লান হতে পারে না। আমাদের নেত্রী কষ্ট করে, পরিশ্রম করে যে অর্জন করেছেন তা আমাদের গুটি কয়েকের জন্য ম্লান হতে দিতে পারি না।

তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনার জন্যই আজ বিশ্বে সম্মানের সঙ্গে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারছে। বিশ্বের যেকোনো জায়গায় উন্নয়ন ও অর্জন নিয়ে কথা বলতে গেলে বাংলাদেশ অনায়াসে চলে আসে, চলে আসে শেখ হাসিনার নাম।

আমির হোসেন আমু বলেন, দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তনের জন্যই সৃষ্টিকর্তা শেখ হাসিনাকে বাঁচিয়ে রেখেছিলেন। তিনি দেশকে উন্নতির নতুন দিগন্তে নিয়ে গেছেন। নিজ দক্ষতায় নিজেকে তিনি একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেন, আজকের বিশ্বে ক্ষমতাধর শুধু নন, সেরা ১০ জনের মধ্যে একজন রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা। নিজ কর্মগুণে তিনি দেশে-বিদেশে সমাদৃত। তিনি টিকাদান কর্মসূচিতে সফলতার জন্য ভ্যাক্সিন হিরো এওয়ার্ড পেয়েছেন। তিনি যুব সমাজের দক্ষতা উন্নয়নের জন্যও জাতিসংঘ পদক পেয়েছেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি বলেন, যারা দুর্নীতি টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস, মাদককারবারি তাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অ্যাকশন শুরু হয়েছে। শুধু রাজধানীতে নয়, ঢাকার বাইরেও এই অভিযান শুরু হচ্ছে। গুটিকয়েক লোকের কারণে দলের অপকর্মের দায়ভার আওয়ামী লীগ নেবে না।

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, যারা বিএনপি ও ফ্রিডম পার্টির লোকদের বৃহৎ এ দলে এনেছেন, অনুপ্রবেশে সহায়তা করেছেন তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জন্ম দিনে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, একজন রাজনীতিবিদ পরবর্তী নির্বাচন নিয়ে ভাবেন। আর শেখ হাসিনার পরবর্তী ভাবনা নতুন প্রজন্ম নিয়ে। ৪৪ বছরের বিচক্ষণ রাজনীতিক, কূটনৈতিক, দক্ষ প্রশাসকের নাম শেখ হাসিনা। যার উন্নয়ন ও ক্ষমতার ছোয়ায় ছুঁয়ে গেছে জনপদ।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য করেন- প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, ড. আব্দুর রাজ্জাক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।